Home | স্বাধীন | শাপলা চত্বরের ইতিহাস মানুষ চিরকাল স্মরণ রাখবে: জুনায়েদ বাবুনগরী

শাপলা চত্বরের ইতিহাস মানুষ চিরকাল স্মরণ রাখবে: জুনায়েদ বাবুনগরী

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব ও হাটহাজারী মাদরাসার সহযোগী পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন, তাওহীদের দাওয়াত দিতে গিয়ে নবী রাসুলগণ অনেক জুলুম-নির্যাতন সহ্য করেছেন৷ হযরত ইব্রাহীম আলাইহি ওয়াসাল্লাম আগুনের রিমান্ডে গিয়েছেন, এরপরও তাওহীদের ব্যপারে কোন আপোষ করেননি৷ নবী রাসুলগণের উত্তরসূরী উলামায়ে কেরামও তাওহীদের ব্যাপারে কোন আপোষ করতে পারে না৷

বৃহস্পতিবার রাতে হেফাজতের সাবেক নায়েবে আমির আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরীর সভাপতিত্বে হাটহাজারী পার্বতী মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ময়দানে আল-আমিন ফাউন্ডেশন আয়োজিত দুই দিনব্যপী ঐতিহাসিক তাফসীরুল কুরআনে মাহফিলের প্রথম দিনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন তিনি।
আল্লামা বাবুনগরী বলেন, শাপলার ইতিহাস রক্তঝরা এক ইতিহাস। ওই দিনের ট্রাজেডি অত্যন্ত মর্মান্তিক, ও বেদনাদায়ক৷ সেদিন শাপলা চত্বরের ইতিহাস এদেশের মানুষ চিরকাল শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ রাখবে। সেদিন আমি স্বচক্ষে শহীদের রক্তমাখা লাশ দেখেছি৷ এই শান্তিপ্রিয় হাটহাজারীতেও ছয়জন নবীপ্রেমিক শহীদ হয়েছিল৷

তিনি আরো বলেন, শাহবাগে নাস্তিক মুরতাদরা যখন বিশ্বনবীর শানে কটুক্তি করেছিল তখন কেবলমাত্র নবীর (সা.) সম্মান রক্ষার জন্য আমরা লাখো মুমিন শাপলা চত্বরে উপস্থিত হয়েছিলাম৷ ক্ষমতা দখল কিংবা দুনিয়ার কোন স্বার্থ হাসিলের জন্য আমরা সেদিন শাপলা চত্বরে যাইনি৷
অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন মুফতী ওলী উল্লাহ, মুফতী সাখাওয়াত হুসাইন, মাওলানা গাজী ইয়াকুব ওসমানী, মুফতী সিরাজুল্লাহ, মাওলানা আব্দুল করীম, মুফতী আবু সাঈদ প্রমুখ৷ সংবাদ উৎস – যুগান্তর

শীতের আগেই শ্বাসকষ্ট
শীত আশার আগেই আহসান চিন্তায় পড়ে গেছেন। কারণ তার শ্বাসকষ্ট হচ্ছে, আর এই সমস্যা তার পুরো শীতেই থাকে। ওষুধেও খুব একটা কাজ হয় না। আহসানের মতো যাদের চিন্তা হচ্ছে শীতে শ্বাসকষ্ট হতে পারে, শ্বাসকষ্ট কমাতে জেনে নিন কিছু ঘরোয়া উপায়:
আদা শ্বাসনালীর প্রদাহ কমিয়ে অক্সিজেনের প্রবেশ স্বাভাবিক রাখে। আদা চা বা আদার রস ও মধু মিশিয়ে খান সরষের তেল হালকা গরম করে বুকে-পিঠে, গলায় ভালো করে ম্যাসাজ করুন শ্বাসকষ্ট কমে যাবে। ফুসফুস ঠিক মতো কাজ করলেই শ্বাস-প্রশ্বাসও স্বাভাবিকভাবে হতে শুরু করে।

ফুসফুসের কর্মক্ষমতা বাড়াতে উপকারি ডুমুর। কয়েকটি ডুমুর সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন সকালে খালি পেটে পানি ও ডুমুর খেয়ে ফেলুন। বাজারে শুকনো ডুমুর কিনতে পাওয়া যায়।
পেঁয়াজ-রসুন আর বাদ যাবে কেন! সব তরকারিতেই তো আমরা পেঁয়াজ খাচ্ছি, অনেক কিছুতে রসুন। তবে ‍খাবারের সঙ্গে কাঁচা পেঁয়াজ খেলেই বেশি উপকার পাওয়া যায়। শ্বসকষ্ট কমাতে আধা কাপ দুধ ও এক টেবিল চামচ রসুন কুচি ফুটিয়ে ঠাণ্ডা করে পান করুন।

কড়া এক কাপ কফি পান করলে শ্বাসনালি খুলে যায়। বেশি খারাপ লাগলে দিতে তিন কাপ পর্যন্ত কফি পান করতে পারেন। এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে এক চামচ করে মধু মিশিয়ে পান করুন। নিয়মিত এই পানীয় পানে শুধু শ্বাসকষ্ট নয় মেদও কমে। যেকোনো ধরনের ওষুধ খাওয়া বা ব্যবহারের আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।
খবরটি শেয়ার করুন

About admin

Check Also

ভোটযুদ্ধের প্রস্তুতি : মনোনয়নপত্র সংগ্রহে বিএনপিতে রেকর্ড

আন্তর্জাতিক মহলের দৃষ্টি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিকে। ইউরোপীয় পার্লামেন্টে বাংলাদেশ নিয়ে বিতর্ক শেষে ভোটাভুটির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *