Home | সংবাদ | রুনির পা রক্ষায় লাগবে তিন লাখ টাকা

রুনির পা রক্ষায় লাগবে তিন লাখ টাকা

রাজধানীর ফার্মগেটে সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত র‍্যাংগস প্রপার্টিজের অভ্যর্থনাকারী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী রুনি আক্তারের (২৮) ডান পায়ে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। তার পা রক্ষা পেয়েছে বলে চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন। তার এ ব্যয়বহুল চিকিৎসায় প্রাথমিক পর্যায়েই লাগবে তিন লাখ টাকা।

বুধবার (১১ এপ্রিল) রাত নয়টার দিকে রাজধানীর বেসরকারি ইবনে সিনা হসপিটালে রুনির অস্ত্রোপচার হয়। তার অস্ত্রোপচার করেন অধ্যাপক ইদ্রিস আলী।

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে রুনির সহকর্মী আহমদ আলী বলেন, রুনির পায়ের আঘাত গুরুতর। তার পায়ের মাংসসহ চামড়া ছিঁড়ে গেছে। তিন ঘণ্টা ধরে তাঁর অস্ত্রোপচার হয়। তার পা রক্ষা পেয়েছে। তিনি এখন আইসিইউতে আছেন। তার জ্ঞান ফিরেছে। তবে তার সুস্থ হতে দীর্ঘ সময় লাগবে।

রুনির সহকর্মী আহমদ আলী বলেন, রুনির চিকিৎসা বেশ ব্যয়বহুল বলে চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন। প্রাথমিক পর্যায়ে তিন লাখ টাকা প্রয়োজন। অফিসের সহকর্মীরা মিলে কিছু টাকা জোগাড় করে খরচ চালানো হচ্ছে।

বুধবার সকাল নয়টার দিকে ফার্মগেটের আনন্দ সিনেমা হলের সামনে সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন রুনি। তার ডান পায়ের হাঁটুসংলগ্ন স্থান ক্ষতবিক্ষত এবং ওই স্থান থেকে মাংস ছিঁড়ে গেছে।

ঘটনার এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, আনন্দ সিনেমা হলের সামনে বাস থামিয়ে যাত্রী ওঠানো-নামানো হয়। সেখানে সড়কে উঁচু বিভাজক আছে। ওই বিভাজকের ওপর যাত্রীরা দাঁড়ায়। সকাল নয়টার দিকে রুনি সড়ক থেকে উঁচু বিভাজকের ওপর উঠতে যাচ্ছিলেন। এ সময় বেপরোয়া গতির নিউ ভিশন পরিবহনের একটি বাস সড়ক বিভাজক ঘেঁষে এগিয়ে আসে। বিভাজক ও বাসের মাঝে রুনির ডান পা চাপা খায়। পরে বাসচালক আবদুল মোতালেবকে আটক করে পুলিশের কাছে তুলে দেওয়া হয়।

প্রথমে রুনিকে পঙ্গু হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে তাঁকে তাঁর স্বজনেরা ইবনে সিনা হাসপাতালে নিয়ে যান।

পারিবারিক সূত্র বলেছে, রুনি বিবিএ করার পর র‍্যাংগস প্রপার্টিজে চাকরি নেন। এখন তিনি ধানমন্ডির একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএ করছেন। চাকরি করে তিনি সংসার চালাতে সহযোগিতা করেন।

/এসএম

পূর্বপশ্চিম পড়তে এখানে ক্লিক করুন।

এবার নারীর পা থেঁতলে গেল বাসচাপায়

About admin

Check Also

উল্টো যেতে বাধা দেয়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পা থেঁতলে দিল মন্ত্রণালয়ের বাস!

ট্রাফিক পুলিশ কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেনকে ইচ্ছাকৃতভাবে চাপা দিয়ে পা থেঁতলে দেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে তার জীবন নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছে। তিনি এখন স্কয়ার হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ভর্তি রয়েছেন। চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে পরিবার বলছে, দেলোয়ারের অবস্থা শঙ্কটাপন্ন। তার জীবন বাঁচানোটাই এখন মুখ্য বিষয়। দেশের বাইরে নিয়ে তার উন্নত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *